জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের কপি পাননি খালেদার আইনজীবীরা

Tue, Feb 13, 2018 5:09 PM

জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের কপি পাননি খালেদার আইনজীবীরা
জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের কপি না পাওয়ায় মঙ্গলবারও আপিল করতে পারেননি তার আইনজীবীরা।   

বিএনপি চেয়ারপারসনের অন্যতম আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বলেছেন, রায়ের কপি পেলে তারা বুধবার আপিল জমা দেওয়ার চেষ্টা করবেন।  

বিদেশ থেকে জিয়া এতিমখানা ট্রাস্টের নামে আসা দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী পুরানো ঢাকার কারাগারে রাখা হয়েছে।

তার সঙ্গে দেখা করার জন্য মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে সানাউল্লাহ মিয়াসহ চার আইনজীবী কারাগারের সামনে যান। পরে সেখান থেকে তারা যান কারা অধিদপ্তরে।

সে সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, “কিছু কাগজপত্রে ম্যাডামের সই লাগবে। এ কাজেই এসেছি। বেরিয়ে এসে আপনাদের সঙ্গে কথা বলব।”

প্রায় ৪৫ মিনিট পর তারা কারা অধিপপ্তর থেকে কারাগারের মূল ফটকে এসে অপেক্ষা করেতে থাকেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি না মেলায় বেলা ৩টার দিকে ফিরে যান।

সানাউল্লাহ মিয়া সে সময় সাংবাদিকদের বলেন, “আগামীকাল এ মামলার রায়ের কপি পেলে আমরা জামিনের জন্য আবেদন করব।”

এই আইনজীবী জানান, তারা কিছু ওকালতনামা এনেছিলেন। খালেদা জিয়ার সইয়ের জন্য সেগুলো কারা কর্তৃপক্ষকে দিয়েছেন তারা।

“কারা কর্তৃপক্ষ এগুলো গ্রহণ করেছে। তারা বলেছে, এগুলোতে স্বাক্ষর নিয়ে পরে আমাদের ফেরত দেবে।”

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, খালেদা জিয়াকে অন্য মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর যে খবর বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে এসেছে তা সঠিক নয়।

“আমরা কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করে জানতে চেয়েছি, বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে খবর এসেছে- তা আসলে ঠিক কিনা। তারা আমাদের জানিয়েছে, তার বিরুদ্ধে সে রকম কোনো অর্ডার আসেনি।”

সামনে গ্যাটকো, বড়পুকুরিয়াসহ তিনটি মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরার তারিখ রয়েছে। তবে এই মামলাগুলোতে খালেদা জিয়াকে নিজে উপস্থিত থাকতে হয় না। আইনজীবীর মাধ্যমেই তিনি হাজিরা দিতে পারেন বলে সানাউল্লাহ মিয়া জানান।

কারাগারের একজন কর্মকর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা তিনটি ওকালত নামা নিয়ে এসেছিলেন। সেগুলো গ্রহণ করে ‘ভেতরে’ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
উপরে যান